ফ্রিল্যান্সিং

ফ্রিল্যান্সিং করে মাসে লক্ষ টাকা ইনকাম

কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শিখবো এবং শুরু করবো ?
আপনিও অবশই ঘরে বসে ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করার উদ্দেশ্যে ফ্রিল্যান্সিং করার কথা ভাবছেন। এক্ষেত্রে, “ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখব” এবং “কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করবো” এই দুটি প্রশ্ন আপনার মনে অবশই ঘর করে বসেছে।

তবে চিন্তা করবেননা, এই ধরণের প্রশ্ন থাকাটা স্বাভাবিক এবং জরুরি।
কেননা, বর্তমানে কোনো স্কুল বা কলেজে ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়না।
আর যার ফলে, এই freelancing এর বিষয়টা প্রথম অবস্থায় আমাদের কিছুটা অন্যরকম অবশই মনে হয়ে থাকে।

এবং, আজকে আপনারা জেনেনিবেন যে,

কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শিখবো ?
অনলাইনে ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণ কিভাবে নিতে পারবেন
কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করবো ?
Freelancing এর কাজ কিভাবে পাবো ?
সেরা কিছু ফ্রিল্যান্সিং কাজ / দক্ষতা (skills) যেগুলোর চাহিদা প্রচুর
আমরা প্রত্যেকেই জানি, ফ্রিল্যান্সিং হলো এমন এক বিস্বাসী মাধ্যম যেটার দ্বারা ঘরে বসে প্রচুর অনলাইন ইনকাম করা সম্ভব।

আজ বিশ্বজুড়ে হাজার লক্ষ freelancers রয়েছে, যারা নিজের পছন্দ হিসেবে যেকোনো জায়গার থেকে freelancing এর মাধ্যমে কাজ করছেন এবং সাধারণ চাকরির তুলনায় দুগুণ থেকেও অধিক টাকা আয় করছেন।

তবে, আগেকার সময়ে এই ধরণের মাধ্যম ব্যবহার করে টাকা আয় করার প্রচলন ছিলোনা।
তাই, অনেকেই আপনাকে এই ধরণের কাজ করার পরামর্শ দিবেনা।
কিন্তু, বর্তমানের সময় হলো ডিজিটাল প্রযুক্তি ও ইন্টারনেটের, তাই বর্তমানের আধুনিক ছেলে মেয়েরা ফ্রিল্যান্সিং এর গুরুত্ব অনেক ভালো করেই বুঝতে পারেন।

ফলে, ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার তৈরি করে অনলাইনে ইনকাম করার বিষয়টা তাদের মনে ঘর করে নিয়েছে।
তাহলে চলুন, বেশি সময় নষ্ট না করে আমরা জেনেনি, “কিভাবে শিখবেন ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ“.

ওয়েবসাইট থেকে টাকা আয় করার উপায়
ফ্রিল্যান্সিং মানে কি ? (What is freelancing)
ফ্রিল্যান্সিং হলো এমন একটি প্রক্রিয়া, যেখানে আপনি নিজের skills, knowledge, experience, qualification ইত্যাদি ব্যবহার করে, অন্য ব্যক্তি দের জন্য কাজ করবেন।

এবং, আপনি যেই ব্যক্তির জন্য কাজ করবেন, সেই ব্যক্তি কাজ করার বিনিময়ে আপনাকে কিছু টাকা দিয়ে দিবে।

Freelancing হলো সেই পরিবেশ যেখানে আপনি একজন freelance বা self-employed হিসেবে জীবন-নির্বাহ করছেন এবং আপনার ওপর কারো মালিকানা অধিকার থাকবেনা।

সোজা ভাবে বললে, চাকরির চিন্তা না করে আপনি একটি boss free life এর মজা নিতে পারবেন।

এই ক্ষেত্রে, আপনি কোনো নির্দিষ্ট নিয়োগকর্তা (employer), সংগঠন, কোম্পানি বা দল এর সাথে সংযুক্ত থাকছেননা।
Freelancing এর ক্ষেত্রে, আপনি একজন self-employed যে কেবল নিজের জন্য নিজের মালিক হয়ে কাজ করছে।
যেই ব্যক্তি freelancing এর কাজ করে জীবন-নির্বাহ করছেন, তাকে “Freelancer” বলা হয়।
ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ করা মানেই, অন্যান্ন ব্যক্তি বা কোম্পনির জন্য চুক্তি হিসেবে কাজ করা।
আর তাই, freelancing এর কাজ করার জন্য আপনার মধ্যে কিছু বিশেষ talent বা skills থাকতেই হবে, যেগুলো আপনি সার্ভিস হিসেবে অন্যদের বিক্রি করতে পারবেন।

আপনার মধ্যে যেকোনো skills বা talent থাকতে পারে।

যেমন, web designing, app developer, graphic designer, content writer, WordPress developer ইত্যাদি হাজার হাজার ধরণের কাজ রয়েছে যেগুলোর মাধ্যমে freelancing করতে পারবেন।

তবে চিন্তা করবেননা,
আজকে, freelancing নিয়ে আমি আপনাদের অনেক কিছু পরিষ্কার করে বলবো।

কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শিখবো ? (ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণ)
বন্ধুরা, আগের সেই সময় চলে গেছে যেখানে একটি নতুন বিষয়ে জানার ও প্রশিক্ষণ নেওয়ার ক্ষেত্রে আমাদের অনেক সময় লেগে যেতো।

আজ হলো ইন্টারনেটের সময়। আর তাই, যেকোনো নতুন বিষয়ে নিমিষের মধ্যে জেনে নেওয়া সম্ভব এই ইন্টারনেটের মাধ্যমে।
“ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখব“, এই প্রশ্ন করার সাথে সাথে দুটো বিষয়ে আপনার জেনে রাখা দরকার।

প্রথম বিষয়,
Freelancing হলো একটি profession যেখানে আপনার মধ্যে কিছু বিশেষ কাজের দক্ষতা, অভিজ্ঞতা বা জ্ঞান থাকাটা জরুরি।
তাই, যখনি freelancing শিখার কথা আসছে তখন শিখার মধ্যে আপনার যেকোনো একটি বিষয়ে সম্পূর্ণ প্রফেশনাল ভাবে জ্ঞান নিয়ে নিতে হবে।

যেমন, digital marketing, social media management, content writing, android developer ইত্যাদি প্রচুর subject রয়েছে।

প্রথমেই আপনার যেকোনো বিষয়ে সম্পূর্ণ জ্ঞান ও দক্ষতা অর্জন করতে হবে।
এতে, ভবিষ্যতে আপনি অন্যদের জন্য সেই কাজ করে টাকা আয় করতে পারবেন।

দ্বিতীয় বিষয়,
কেবল প্রফেশনাল কাজ জানা থাকলেই আপনি ফ্রিল্যান্সিং শুরু করতে পারবেননা।
ফ্রিল্যান্সিং শুরু করার জন্য আপনার সাধারণ প্রশিক্ষণ অবশই নিয়ে নিতে হবে যাতে সঠিক ভাবে ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ শুরু করা যেতে পারে।

তাই, এখানে শিখার মধ্যে আপনার শিখতে হবে যে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করার জন্য প্রথমে কি কি করতে হয়।
উদাহরণ স্বরূপে,

কিভাবে অনলাইনে ফ্রিল্যান্সিং একাউন্ট তৈরি করবেন ?
সেরা ফ্রিল্যান্সিং সাইট কোনগুলো ?
কিভাবে কাজ খুজবেন ?
সঠিক ভাবে কাজ করার নিয়ম কি ?
ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ গুলো করার কৌশল
কিভাবে নিজেকে জনপ্রিয় freelancer হিসেবে তৈরি করবেন ?

ইত্যাদি, এই ধরণের বিষয় গুলো নিয়ে আপনার জ্ঞান নিয়ে নিতে হবে যদি আপনি ফ্রিল্যান্সিং এর ক্যারিয়ার তৈরি করার কথা ভাবছেন।
এখন ঘুরে ফায়ার প্রশ্ন এটাই আসলো যে, “প্রথম এবং দ্বিতীয় ভাগে বলা কাজ গুলো কিভাবে শিখবো” ?
এর উত্তর হলো অনলাইনে ইন্টারনেটের মাধ্যমে।
অনলাইনে ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখব ?
যারা ফ্রিল্যান্সিং🖥️ শিখতে চান তাদের জন্য কিছু কথা -🗣️

ফ্রিল্যান্সিং করতে হলে আগে আপনাকে শিখতে হবে কিন্তু সমস্যা হল আমরা না শিখে ইনকাম করতে চাই, আপনি কাজ না শিখলে কিভাবে কাজ করে ইনকাম করবেন?
এই কারনে অনেকে ফ্রিল্যান্সিং সেক্টেরে এসে ২-৩ মাস পর ছেড়ে দেয়।

বর্তমানে বাংলাদেশে মানুষ ১৫-২০ বছর পড়ালেখা করে বেকার বসে আছে। একটা সামন্য চাকরির জন্য ১৫-২০ বছর পড়ালেখা করে লাখ লাখ স্টুডেন্ট চাকরি পাচ্ছে না।

কিন্তু আপনি ফ্রিল্যান্সিং ৩-৪ মাস শিখার মাধ্যমে একটা সুনিশ্চিত ক্যারিয়ার 💼গড়তে পারবেন

ফ্রিল্যান্সিং শিখতে আগ্রহী হলে ইনবক্স করুন সাহায্য করবো।🙂💯
#freelance
#happyfreelancing

🔴 মাসে লক্ষ টাকা ইনকাম তাও আবার একমাস কোর্স করে 🔴

🚫 এটা কখনোই সম্ভব নয়।
✅ কারণ জানতে বিস্তারিত পড়ুন।

💰 টাকা কি গুগলের টাকার গাছে থাকে❓

গুগলের সাথে কন্টাক্ট করে একমাস কোর্স করলেন আর গুগল আপনাকে প্রতি মাসে লক্ষ টাকা দিবে?

🤔 এটা দিন দুপুরে স্বপ্ন দেখা ছাড়া আর কিছু নয়।

♻️ এক মাস পর থেকে ৫-১০ ডলারের কাজ পেলেও জামাই স্যারের স্টুডেন্টদের মত ফেইসবুক গ্রুপে এসে বলবেন, আমি কাজটি পেয়েছি জানিনা কিভাবে কাজটি করতে হয়, কেউ আমাকে হেল্প করো।

🤔 আপনার ক্লাইন্টের কাজটি যখন অন্য কেউ করবে, তখন কাজটি কতটুকু পারফেক্ট হবে তা কি চিন্তা করে দেখেছেন?????

🚫 আপনার কাজটি যদি পারফেক্ট কাজ না হয় তাহলে ক্লায়েন্ট আপনার সাথে আর কাজ করবে না।

🤔 তখন কই যাবে ৫-১০ ডলারের অর্ডার????

লক্ষ টাকা তো দূরের কথা।

🤔 আসলেই কি এক মাসের লক্ষ টাকা ইনকামও যায় না???
✅ অবশ্যই যায়। এটার সাধ আমি ও গ্রহণ করেছি।

✅ মাসে লক্ষ টাকা ইনকাম করতে হলে আপনাকে কি পরিশ্রম এবং কি যোগ্যতা থাকতে হবে তা একমাত্র যারা কাজ করে তারা বলতে পারেন।

🚫 তাহলে, মাসে লক্ষ টাকা ইনকাম করতে হলে আমাকে কি করতে হবে?

🔰 আপনাকে আড়াই বছরের সময় দিতে হবে।
থুক্কু, দুই বছর দিলে হবে।

কিভাবে ২ বছর‼️
✅ তেআর মন দিয়া হুন,

⏩ কম্পিউটার অফিস এপ্লিকেশন (বেসিক কম্পিউটার)(২-৩ মাস)
⏩ গ্রাফিক্স ডিজাইন (মিনিমাম তিন মাস, এবং বেশি সময় দিলে ভালো হয়।)
⏩ ডিজিটাল মার্কেটিং (ফুল কোর্স ৪-৬ মাস)

dhaka news
Dhaka news
dhakanewsbd.com
১বছরে তো হয়ে গেল।
আপনি বললেন দুই বছর

➡️ হ্যাঁ, অবশ্যই দুই বছর।

পরের এক বছর আপনি প্র্যাকটিস করবেন, স্ক্রিল ডেভেলপ করবেন।

🤔 তাহলে কি শেষ?

🔘 না এখন শুরু হলো, এখন আপনি অনলাইনে বিভিন্ন কোর্স করবেন, বিভিন্ন রিসোর্স, টুল কিনবেন, বিভিন্ন অনলাইন মিটিং, গ্রুপে জয়েন হবেন ,youtube থেকে বিভিন্ন নতুন নতুন কিছু শিখবেন, যা আপনার কাজ রিলেটেড।

♥️ এখন যদি আপনি মার্কেটপ্লেসে অথবা আউট অফ মার্কেটপ্লেসে কাজ করতে শুরু করেন , তাহলে ডলার আপনাকে ওয়েলকাম জানাচ্ছে।

এখন আপনি ধৈর্য সহকারে কাজ করুন, মার্কেটপ্লেসে সময় দেন, মার্কেটিং করুন , আল্লাহর উপর ভরসা রাখুন, ইনশাআল্লাহ অনেক ভালো কিছু করতে পারবেন।

✅ এগুলো একদম বাস্তব কথা। আপনার ইচ্ছা হলে মানতে পারেন আবার না ও মানতে পারেন।

আবার ও বলছি কম্পিউটার অফিস এপ্লিকেশন এবং গ্রাফিক্স ডিজাইন প্রথমে শিখতে হবে।
এগুলো বারবার বলার কারণ জানতে কমেন্ট করুন অথবা ইনবক্স করুন।

✅ যোগ্যতা অর্জন করে মাঠে নামুন, খেলা জমবে‌।
তখনই ফ্রিল্যান্সিং করে অনেক কিছু করতে পারবেন, যা অনেক বিজনেসম্যানরা ও করতে পারবে না, শুধু আপনি পারবেন।

🔴 টাকার গাছের কথা তো ভুলেই গেছি।
ধৈর্য ,পরিশ্রম ,যোগ্যতা এগুলো মিলেই হলো টাকার গাছ।

‼️ আমি টাকার গাছের কয়েকটি চারা বিক্রি করব।
নিতে চাইলে দ্রুত ইনবক্স করুন, স্টক সীমিত।

#freelancing #digitalmarketing #onlineearning #olyurdbd

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button