বাংলাদেশ

খুলনায় সংখ্যালঘু পরিবারের বসতবাড়ি ভাংচুর

খুলনার ডুমুরিয়ায় সংখ্যালঘু পরিবারের বসতবাড়ি ভাংচুর, নগদ টাকা ও সোনা লুটপাট।

গতকাল ১৬.১১.২০২২ইং রোজ রবিবার খুলনার ডুমুরিয়ায় ফিল্মি স্টাইলে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের একটি পরিবারের উপর অতর্কিত হামলায় বসতবাড়ি, রান্নাঘর, গোয়ালঘর, ধানের গোলাসহ সকল আসবাবপত্র ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে।গতকাল বুধবার সকাল পোনে ১১টার দিকে ৭১ সালের নৃশংস ঘটনাকে হার মানিয়েছে এই হামলায় উপজেলার গুটুদিয়া ইউনিয়নের সিকদারপাড়া গ্রামে বিকাশ নন্দির বাড়িতে এই ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার মুলহোতা দেয়ানা এলাকার টুকুকে গ্রেপ্তার করেছে আড়ংঘাটা থানা পুলিশ।

জানা গেছে, সিকদারপাড়া গ্রামে দীর্ঘ দুই যুগেরও বেশি সময়কাল যাবত বিকাশ নন্দি(৫০) তার পরিবার নিয়ে বসবাস করছে। তাদের বসতভিটার জায়গা জমি নিয়ে দীর্ঘ দিন একটা বিরোধ চলে আসছে দৌলতপুর দেয়ানা এলাকার টুকু গংদের সাথে। তারই যেরে ঘটনারদিন সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে প্রায় শতাধিক লোক দেশীয় অস্ত্রস্বস্ত্র নিয়ে বিল পাড়ি দিয়ে এসে ফিল্মি স্টাইলে বসতবাড়িতে হামলা চালায়। হামলাকারীরা একটি এ্যাডভেস্টর টিনসেডের বসতঘরসহ, রান্নাঘর, গোয়ালঘর, ধানের গোলা, ধারিরঘর, হাঁস-মুরগি ঘর ভাংচুর ও ঘরে থাকা নগদ দেড়লাখ টাকা, সোনার গহনা ঘাটি লুট করেসহ বিভিন্ন আসবাবপত্র ছড়িয়ে ছিটিয়ে নষ্ট করে বীরদর্পে তারা স্থান ত্যাগ করে। এসময়ে বিকাশ নন্দির স্ত্রী ছনেকা নন্দিকে মারপিট করে গুরুতর আহত করে। তাকে খুলনা মেডিকেলে কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় মেম্বর পলাশ হাওলাদার জানায়, হামলার ঘটনা ৭১ সালের নৃশংস ঘটনাকেও হার মানিয়েছে। মাত্র ১৫ মিনিটের হামলায় বসতবাড়ি সহ ৬ টি ঘর ভাংচুর করে মাটির সাথে ঘুরিয়ে দিয়েছে হামলাকারীরা৷ দিবালোকে এমন সন্ত্রাসী তান্ডব আমি আগে কখনোই দেখিনি। ভয়ে স্থানীয়রা মুখ খুলতেও সাহস পায়নি।

এ বিষয়ে আড়ংঘাটা থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ ওহিদুজ্জান জানান, মর্মান্তিক একটা ঘটনা ঘটেছে সিকদারপাড়া গ্রামে। অতর্কিত হামলায় একটি পরিবারের বসতবাড়ি ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। ওই ঘটনার সাথে জড়িত মুলহোতা টুকুকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোট চট্রগ্রাম জেলা কমিটির এর পক্ষ থেকে এই হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি, সেই সাথে এই ঘটনার জড়িত সকল হামলাকারীদের সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক কঠোর শাস্তি নিশ্চিত করার জন্য স্থানীয় প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button